লালমোহন অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি হচ্ছে সেমাই

প্রকাশিত: ৮:১৬ অপরাহ্ণ, মে ২৯, ২০১৯ | আপডেট: ৮:১৬:অপরাহ্ণ, মে ২৯, ২০১৯
লালমোহন অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি হচ্ছে সেমাই

ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে ভোলার লালমোহনের গ্রাম-গঞ্জের বেশ কয়েকটি কারখানায় নোংরা পরিবেশে, নিম্মমানের ডালঢা ও বহুদিনের পোড়া তৈল দিয়ে তৈরী হচ্ছে সেমাই।

সেমাইগুলো তৈরি হওয়ার পরেই যাচ্ছে পৌর শহর ও গ্রাম-গঞ্জের বিভিন্ন বাজারগুলোতে। এসব সেমাই কারখানাগুলোর নেই সরকারী কোনো অনুমতি। অনুমতি ছাড়াই মানব দেহের জন্য ক্ষতিকর এসব সেমাই মিলছে বিভিন্ন হাট বাজারে হরহামেশা।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার ফরাজগঞ্জ ইউনিয়নের ‘মাসফি’ সেমাই কারখানার শ্রমিকরা খালি হাতেই তৈরি করছে সেমাই। ঘরের মেঝেতে খোলা অবস্থায় পড়ে আছে ডালঢার পাত্র। ময়লা, গাদ ও দুর্গন্ধযুক্ত ট্রে এবং কাদাযুক্ত মেঝে পরিষ্কারের কোন বালাই নেই এখানে। এ ইউনিয়নে সব মিলিয়ে সেমাই কারখানা রয়েছে ৩ টি।

এছাড়াও উপজেলার সাতবাড়িয়া, লাঙ্গলখালীসহ বিভিন্ন এলাকায় ব্যাঙের ছাতার মত গড়ে উঠেছে বেশ কয়েকটি কারখানা। যাদের অবস্থাও এই মাসফি সেমাইয়ের মতই।

এব্যাপারে মাসফি সেমাই কারখানার মালিক লোকমান হোসেন বলেন, আমাদের ট্রেড লাইসেন্স রয়েছে। পরীক্ষামূলকভাবে আমরা দুই বছর ধরে এ কারখানা চালাচ্ছি।

এব্যাপারে লালমোহন হাসপাতালের আরএমও ডা. মো. মহসীন বলেন, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি করা সেমাই খাওয়ার ফলে গ্যাষ্ট্রিকের সমস্যা, ডায়েরিয়া, কিডনি, লিভার ও হার্টের সমস্যা হতে পারে। তাই সকলকে জেনে শুনে এসব পণ্য গ্রহণ করা উচিত।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাবিবুল হাসান রুমি বলেন, খুব শিগগিরই এদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।